শরীয়তের নিজস্ব পরিভাষায় ব্যবহৃত শব্দসমূহ – শব্দের অর্থ নির্ণয় সংক্রান্ত সমস্যা

শরীয়তের নিজস্ব পরিভাষায় ব্যবহৃত শব্দসমূহ – শব্দের অর্থ নির্ণয় সংক্রান্ত সমস্যা – শায়েখ আব্দুল্লাহ আল মুনীর এর মজহাব বনাম আহলে হাদীস নামক গ্রন্থ হতে সংকলিত হয়েছে

অনেক সময় কোনো একটি শব্দকে তার শাব্দিক অর্থে ব্যাবহার না করে শরয়ী অর্থতে ব্যাবহার করা হয়। এই সকল শব্দকে মুজমাল (مجمل ) বলা হয়। অভিধান ঘাটাঘাটি করে মুজমাল শব্দের অর্থ নির্ণয় করা সম্ভব নয়। বরং তার অর্থ নির্ণয়ের ক্ষেত্রে শরীয়তের দলীল প্রমাণের উপর নির্ভর করতে হয়। যেমন সলাত, যাকাত, হাজ্জ, জিহাদ ইত্যাদি শব্দকে ইসলাম নিজ পরিভাষা হিসাবে ব্যাবহার করেছে। এগুলোর সঠিক অর্থ শুধুমাত্র আরবী অভিধান ও ভাষা বিশ্লেষণের মাধ্যমে সম্ভব নয়। বরং শরীয়তের দলীল প্রমাণের মাধ্যমেই এগুলোর সঠিক অর্থ নির্ণয় করতে হবে। কখনও কখনও কোনো মুজমাল শব্দের শরয়ী অর্থ নির্ণয়ে আলেমদের মাঝে দ্বিমত হয়। সফরে সলাত কসর করতে হয় কিন্তু কতদূর সফর করলে শরয়ী দৃষ্টিকোন থেকে কসর করার সুযোগ পাওয়া যাবে সে বিষয়ে ব্যাপক মতপার্থক্য রয়েছে। একইভাবে খুতবা বলে গণ্য হবে যে বিষয়ে মতপার্থ্যক্য রয়েছে। রসুলুল্লাহ সাঃ মোজার উপর মাসেহ করার জন্য পবিত্র অবস্থায় মোজা পরিধান করা শর্ত করেছেন। এই হাদীসে পবিত্রতা বলতে ওযু থাকা অবস্থায় পরিধান করার কথা বলা হচ্ছে নাকি নাপাক বস্তু হতে পবিত্রতার কথা বলা হচ্ছে সে বিষয়ে সামান্য দ্বিমত আছে। যদিও জমহুর আলেমের মতে এখানে ওযুকেই বোঝানো হচ্ছে।

শরীয়তের নিজস্ব পরিভাষায় ব্যবহৃত শব্দসমূহ

শরীয়তের নিজস্ব পরিভাষায় ব্যবহৃত শব্দসমূহ – শব্দের অর্থ নির্ণয় সংক্রান্ত সমস্যা – শায়েখ আব্দুল্লাহ আল মুনীর এর মজহাব বনাম আহলে হাদীস নামক গ্রন্থ হতে সংকলিত হয়েছে

অনেক সময় কোনো একটি শব্দকে তার শাব্দিক অর্থে ব্যাবহার না করে শরয়ী অর্থতে ব্যাবহার করা হয়। এই সকল শব্দকে মুজমাল (مجمل ) বলা হয়। অভিধান ঘাটাঘাটি করে মুজমাল শব্দের অর্থ নির্ণয় করা সম্ভব নয়। বরং তার অর্থ নির্ণয়ের ক্ষেত্রে শরীয়তের দলীল প্রমাণের উপর নির্ভর করতে হয়। যেমন সলাত, যাকাত, হাজ্জ, জিহাদ ইত্যাদি শব্দকে ইসলাম নিজ পরিভাষা হিসাবে ব্যাবহার করেছে। এগুলোর সঠিক অর্থ শুধুমাত্র আরবী অভিধান ও ভাষা বিশ্লেষণের মাধ্যমে সম্ভব নয়। বরং শরীয়তের দলীল প্রমাণের মাধ্যমেই এগুলোর সঠিক অর্থ নির্ণয় করতে হবে। কখনও কখনও কোনো মুজমাল শব্দের শরয়ী অর্থ নির্ণয়ে আলেমদের মাঝে দ্বিমত হয়। সফরে সলাত কসর করতে হয় কিন্তু কতদূর সফর করলে শরয়ী দৃষ্টিকোন থেকে কসর করার সুযোগ পাওয়া যাবে সে বিষয়ে ব্যাপক মতপার্থক্য রয়েছে। একইভাবে খুতবা বলে গণ্য হবে যে বিষয়ে মতপার্থ্যক্য রয়েছে। রসুলুল্লাহ সাঃ মোজার উপর মাসেহ করার জন্য পবিত্র অবস্থায় মোজা পরিধান করা শর্ত করেছেন। এই হাদীসে পবিত্রতা বলতে ওযু থাকা অবস্থায় পরিধান করার কথা বলা হচ্ছে নাকি নাপাক বস্তু হতে পবিত্রতার কথা বলা হচ্ছে সে বিষয়ে সামান্য দ্বিমত আছে। যদিও জমহুর আলেমের মতে এখানে ওযুকেই বোঝানো হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.