একাধিক মত ও পথ কেনো থাকবে – শায়েখ আব্দুল্লাহ আল মুনীর

একাধিক মত কেনো থাকবে – শায়েখ আব্দুল্লাহ আল মুনীর – মাজহাব বনাম আহলে হাদীস গ্রন্থ হতে হুবহু গ্রন্থটি সংকলন করা হয়েছে

কেউ কেউ বলেন, আল্লাহ তায়ালা কোরআনের বিভিন্ন স্থানে মতপার্থক্য ও দলাদলী করতে নিষেধ করেছেন। তাহলে ইসলামের মধ্যে একাধিক মত ও পথ কেনো থাকবে? তাদের কথার উত্তর পূর্বে গত হয়েছে। আমরা দেখেছি কোরআন ও হাদীস বোঝার ব্যাপারে দ্বিমত হতে পারে। সাহাবাদের যুগেও মতপার্থক্য ছিলো এবং কিয়ামত পর্যন্ত থাকবে। আমরা এ বিষয়ে বহু উদাহরণ পূর্বে উল্লেখ করেছি। আমরা দেখেছি বনু কুরাইজায় আসরের সলাত পড়ার ব্যাপারে সাহাবয়ে কিরামের মাঝে কিরুপ দ্বিমত হয়েছিল এবং রসুলুল্লাহ সাঃ কাউকে তিরষ্কার করেন নি অর্থাৎ তিনি মতপার্থক্যকে মেনে নিয়েছেন। সুতরাং ইজতিহাদী মাসয়ালাতে তিনটি, চারটি  বা তার অধিক মত থাকা আল্লাহ তায়ালা এর কথার বিপরীত নয় তবে উক্ত মতামতের উপর ভিত্তি করে পরষ্পরকে তিরষ্কার করা এবং একজন আরেকজনের সাথে লাঠালাঠি করাই হলো মুলত নিষিদ্ধ দলাদলি। বলা বাহুল্য যে, এই ধরণের দলাদলী আহলে হাদীসরাই করে থাকে। তারা যে কোনো বিষয়ে কোনারুপ মতপার্থক্য সহনীয় মনে করে না বিধায় সামান্য মতপার্থক্যের কারণে আলেম-ওলামাদের তিরষ্কার করে এবং নিজেরা বিভক্ত হয়ে পড়ে। অপরদিকে চার মাযহাবের আলেমরা অন্য মাযহাবের লোকদের হক পন্থী বলেই মনে করে। এখন চিন্তা করে দেখার বিষয় হলো এদুটি কর্মপন্থার মধ্যে কোনটি সাহাবায়ে কিরাম রাঃ এর কর্মপন্থার সাথে বেশি সমঞ্জস্যপূর্ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.